হটাত কেউ অজ্ঞান হলে যা করা উচিত

  • Admin
  • November 14, 2017
  • Comments Off on হটাত কেউ অজ্ঞান হলে যা করা উচিত

যে কোনো মুহূর্তে যে কেউ জ্ঞান হারিয়ে ফেলতে পারে। আপনার সামনেই এরকম ঘটনা ঘটতে পারে। অজ্ঞান হওয়ার পিছনে অনেক কারণ থাকতে পারে তবে সাধারণত জ্ঞান হারানোর আগে আক্রান্ত ব্যক্তি বিভিন্ন বিষয় বলতে পারে। যেমন : চিন্তাশূন্যতা (চঞ্চলতা), দুর্বলতা, বমিভাব, চামড়া বিবর্ণ হওয়া এবং চটচটে ভাব।

অজ্ঞান হওয়ার আরো কিছু কারণঃ

হঠাৎ অজ্ঞান হওয়ার কিছু কারণ :

১. স্ট্রোক বা মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হলে

২. মস্তিষ্কে টিউমার হলে

৩. মেনিনজাইটিস বা মস্তিষ্কে সংক্রমণ হলে

৪. শরীরের পানি ও লবণের ঘাটতি বেশি হলে

৫. রক্তে সুগারের মাত্রা অনেক কমে গেলে

৬. নেশাজাতীয় পণ্য ব্যবহারে

৭. কিছু মানসিক রোগের ওষুধ ব্যবহারে, আবার কিছু ওষুধ হঠাৎ বন্ধ করে দিলে

৮. অতিরিক্ত গরম, বেশি মানুষের ভিড়ে

৯. অপুষ্টি, টানা উপবাসে থাকলে

১০. হঠাৎ ভয় পেলে

১১. খুব বেশি জ্বর হলে

১২. এপিলেপ্সি বা মৃগী রোগে

১৩. বজ্রপাত হলে

১৪. ইলেকট্রিক শক লাগলে

১৫. হিটস্ট্রোক হলে

 

অজ্ঞান হওয়ার আগে দেহে যা ঘটেঃ

১. চেহারা ফ্যাকাসে হয়ে যায়

২. শরীর হঠাৎ ঠান্ডা হয়ে যায়

৩. অস্বাভাবিকভাবে ঘামতে থাকে

৪. মাথা ঘোরে বা মাথাব্যথা

৫. সামনের সব বস্তু ঝাপসা বা অন্ধকার দেখা

৬. বমি বমি ভাব

৭. পাল্স কমে যাওয়া

৮. দ্রুত শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা হওয়া

করনীয় যদি কোন ব্যক্তি জ্ঞান হারাবে বোধ করে, তখন অবশ্যই কিছু প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া যেতে পারে। যেমন: সামনের দিকে ঝুঁকে পড়া, মাথাটা মুড়ে হাঁটুর দিকে নিয়ে যাওয়া। কারন মাথা বুকের নীচে যাওয়ায়, মস্তিষ্কের দিকে রক্তবাহিত হবে। কোন ব্যক্তি অজ্ঞান হয়ে গেলে কিছু বিষয় মনে রাখা দরকার। যার মাধ্যমে তাঁকে দ্রুত সুস্থ্য করে তোলা যেতে পারে। যেমন : মাথা নীচে রেখে পাদুটো একটু উঁচু করে শুইয়ে রাখুন। আঁটোসাটো জামাকাপড় ঢিলা করে দিন। মুখ ও ঘাড়ে ঠান্ডা এবং ভেজা কাপড় লাগান। বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে, ঐ অবস্থায় রাখার পর জ্ঞান ফিরে আসবে। রোগীর পরিচয় জিজ্ঞেস করে নিশ্চিত হোন যে জ্ঞান পুরো ফিরে এসেছে। পরে অজ্ঞান হয়ে যাওয়া ব্যক্তিকে একজন ডাক্তারকে দেখানো উচিত।

 

(পোস্টটি 1 জন দেখছেন)